[english_date], [bangla_date]

ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বেরোবির নতুন উপাচার্য

Thursday, 01/06/2017 @ 8:12 am

নিউজ ডেস্ক : টানা ২৬ দিন পর অBRUR20170601134624ভিভাবক পেল বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি)। বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ দুই পদ শূন্য থাকার পর অবশেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে নিয়োগ পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ।
এর আগে তিনি প্রেষণে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালসের (বিইউপি) উপ-উপাচার্য হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে নিয়োগ প্রদানের প্রজ্ঞাপন জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এই প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়েছে।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা-১ এর সহকারী সচিব আবদুস সাত্তার মিয়া স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর আইন ২০০৯ এর ১০(১) ধারা অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে নিয়োগ প্রদান করতে সম্মতি জানিয়েছেন।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, উপাচার্য হিসেবে তার নিয়োগের মেয়াদ চার বছর হবে। তবে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও আচার্য প্রয়োজন মনে করলে এর পূর্বেই এ নিয়োগাদেশ বাতিল করতে পারবেন।
তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বক্ষণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন। এ নিয়োগাদেশ তার যোগদানের তারিখ হতে কার্যকর হবে।
অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালসের (বিইউপি) সাবেক উপ-উপাচার্য এবং চেয়ারম্যান জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ (জানিপপ)। একইসঙ্গে এশিয়ান এজ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন।
জনপ্রিয় এ টিভি টক শো ব্যক্তিত্ব ঢাবির লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপির) উপ-উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নূর-উন-নবীর মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত ৫ মে থেকে এ পদ শূন্য ছিল। উপাচার্য পদটি শূন্য হওয়ার ২৬ দিন পর চতুর্থ উপাচার্য নিয়োগ দিলেও উপ-উপাচার্য এবং কোষাধ্যক্ষ পদে এখনো পর্যন্ত কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়নি। ২০১৩ সালের ১৭ আগস্ট থেকে কোষাধ্যক্ষ পদটি শূন্য হয়।