[english_date], [bangla_date]

যতদিন চাইবে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে মাশরাফি

Tuesday, 11/07/2017 @ 12:44 pm

 নিউজ ডেস্ক : অনেকের কাছে বিষয়টা অনৈতিক। মাশরাফি বিন মুর্তজার দলে থাকা বা নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন? ২০১৯ বিশ্বকাপে তার বদলে অন্য কাউকে বেছে নেওয়ার আলোচনা! বিষয়টা গুঞ্জন থেকে যে রূপ নিয়েছে তা মাশরাফিকে কষ্ট দিয়েছে খুব। তিনি চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন। যেমনটা ইনজুরিকে বারবার হারিয়ে চ্যালেঞ্জ জিতেছেন। নতুন এই চ্যালেঞ্জে মাশরাফি পাশে পেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সবচেয়ে ক্ষমতাধর মানুষটিকেই। মাশরাফিকে নেতৃত্ব থেকে সরানোর প্রশ্নে তিনি হাসবেন না কাঁদবেন বুঝতে পারছেন না। ব্যাপারটা বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনের কাছে এমনটাই। মঙ্গলবার তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, মাশরাফি যতদিন চাইবে বাংলাদেশ দলে খেলবে। নেতৃত্বেও থাকবে মাশরাফি। তার কোনো বিকল্প নেই।
নাজমুল হাসান পাপন মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে এদিন এই প্রশ্নটা ওঠাতেই ব্যথিত হলেন। সেই ব্যথাটা কদিন আগের সংবাদ সম্মেলনে প্রথম পেয়েছেন তা আরো বেড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানা কথা চারদিক থেকে কানে আসায়। বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান আসলে পুরো বিষয়টায় শুধু ব্যথিত নন বিস্মিতও।
নাজমুল হাসান একটানে পরিস্কার করে ঘোষণার মতো করে বলে দিয়েছেন, ‘আমাকে আগের দিন প্রশ্ন করা হয়েছিল ধোনি বিশ্বকাপ খেলবে না বলে ও ক্যাপ্টেন্সি বাদ দিয়েছে। আমি বলেছিলাম আমিওতো টি-টুয়েন্টিতে এটা করেছি (মাশরাফি টি-টুয়েন্টি খেলা ছেড়েছেন)। ওয়ানডে নিয়ে কিছু না।’ এরপর খুব নাজমুল হাসানের কণ্ঠে বিস্ময় ঝরে পড়ে, ‘এখন চারদিকে এমনভাবে আসছে যেনো ওকে এর আগে (২০১৯ বিশ্বকাপ) বাদ দেওয়া হবে। এটা হওয়ার সম্ভাবনা নেই। ও যতদিন খেলবে, থাকবে। আমাদের দলে ওর দুইটা ভূমিকা। এক ক্যাপ্টেন্সি। যেটাতে ওর কোনো বিকল্প বাংলাদেশে নেই। আর বোলার হিসেবেও সে খুব ভালো পারফরম্যান্স করছে। ওকে বদলানোর কোনো পরিকল্পনা আমাদের নেই। এমন কিছু হলে আপনারা না ওর সঙ্গে আলোচনা করা হবে।’
মাশরাফিকে নিয়ে যে কথাগুলো চলছে তা নাজমুল হাসানের কাছে কতোটা আপত্তিকর ও ঘৃণিত তাও বোঝা যায় তার উচ্চারণে। সেই সাথে মাশরাফির জন্য হৃদয়ের গহীন থেকে বেরিয়ে আসে দরদ আর ভালোবাসা, ‘যে আলোচনা হচ্ছে এটা খুব খারাপ। মাশরাফির জন্যও বিরক্তিকর। ওর মন নিশ্চয়ই খারাপ আছে। ও ভাবতে পারে এমন কিছু আছে যা ওকে বলা হয় না। কারণ ওর সাথে আমার নিয়মিত যোগাযোগ হয়। আমার মতে এমন প্রশ্ন আসা উচিৎ নয়।’