উত্তেজনার মধ্যেই ভারতীয় বিমানবাহিনীর হাতে ভয়ঙ্কর অ্যাপাচি

0
109
Boeing hands over first four of 22 AH-64E Apache attack,First Four AH-64E Apache Attack Helicopters Arrive in India,Boeing AH-64 Apache,Historical Snapshot,AH-64 Apache Attack Helicopter
AH-64E Apache Attack Helicopters

ভারতীয় বিমানবাহিনীর হাতে এসেছে পৌছেছে নতুন এক ভয়ঙ্কর  হাতিয়ার।

যুদ্ধক্ষেত্রে পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী ও ভয়ঙ্কর বলে পরিচিত বোয়িং এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচি গার্ডিয়ান অ্যাটাক হেলিকপ্টার।

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই সেই হেলিকপ্টার এবার যোগ দিচ্ছে ভারতের বিমানবাহিনীতে।

মঙ্গলবার পাঠানকোট বিমান ঘাঁটি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে তা বিমানবাহিনীতে যোগ দেবে।

এটি বিশ্বের সর্বাধুনিক মাল্টি রোল কমব্যাট হেলিকপ্টার। দেশটির এমআই-৩৫ হেলিকপ্টারের পরিবর্তে কাজ করবে এই শক্তিশালী অ্যাপাচি।

গত ২৭ জুলাই এই হেলিকপ্টারের প্রথম ব্যাচটি এসে পৌঁছায় গাজিয়াবাদের হিন্দোন বিমান ঘাঁটিতে। বেশ কয়েকটি ধাপে পরীক্ষার পর সেটিকে পাঠানো হয়েছে পাঠানকোটে।

মঙ্গলবার বিমান বাহিনীর প্রধান বি এস ধানোরায় উপস্থিতিতে কপ্টারটিকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে মার্কিন বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে করা চুক্তির আওতায় ভারত অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার অ্যাপাচি এএইচ ৬৪ ই হাতে পায়। ২২টি অ্যাপাচি হেলিকপ্টার কেনার চুক্তি করেছিল ভারত।

আরও পড়ুনঃপতিতাকে বিয়ের প্রস্তাব,রাজি না হওয়ায় খুন করে পাঁচ টুকরো

এ হেলিকপ্টারগুলো সর্বাধুনিক আক্রমণাত্মক হেলিকপ্টার। এগুলোর আছে চার ব্লেডের অ্যাটাকিং কপ্টার। যেকোনো আবহাওয়ায় এসব হেলিকপ্টার হামলা চালাতে পারে।

গাছের উচ্চতায় নেমে লক্ষ্যবস্তুকে চোখের নিমেষে গুঁড়িয়ে দিয়ে চলে যেতে পারে অ্যাপাচি হেলিকপ্টার। লক্ষ্যে সরাসরি আঘাত হানতে এই হেলিকপ্টারে রয়েছে নাইট ভিশন সিস্টেম।

মার্কিন বিমানবাহিনীর সদস্যরা প্রচুর পরিমাণে অ্যাপাচি হেলিকপ্টার ব্যবহার করেন। প্রায় ৩০০ কিলোমিটার বেগ পর্যন্ত উড়তে সক্ষম এই হেলিকপ্টারগুলো।

অন্ধকারে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে আঘাত হানতে এবং দ্রুত ওঠানামার ক্ষমতা এ হেলিকপ্টারের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। এক টানা প্রায় ৪৭৬ কিলোমিটার উড়তে পারে অ্যাপাচি।

একজন পাইলট ও গানার থাকেন হেলিকপ্টারটি পরিচালনা করার জন্য। একটি একটি অ্যাপাচি হেলিকপ্টারে থাকে থার্টি এম এম মেশিনগান। হেলিকপ্টার থেকে প্রতি মুহূর্তে সর্বোচ্চ ১ হাজার ২০০ বার গুলি ছোড়া যায়।

১৬ এজিএম-১১ এ আর হেলফায়ার-২ অ্যান্টি ট্যাংক গাইডেড মিসাইল বহন করতে পারে এই হেলিকপ্টার। এ মিসাইল দিয়ে ট্যাংক ধ্বংস করা যায়।

এ ছাড়া দুটো এআইএম-৯ সাইডউইন্ডার, চারটি এআইএম-৯২ স্টিংগার, মিস্ট্রাল ক্ষেপণাস্ত্রও বহন করতে পারে অ্যাপাচি। শত্রুপক্ষের রাডার ধ্বংস করতে পারে এসব অ্যাপাচি। বিশেষ করে পাহাড়ি এলাকার জন্য খুবই উপযোগী অ্যাপাচি হেলিকপ্টার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here