রবিবার, ৩১ মে, ২০২০

আমি তো গত সাড়ে ৬ বছর ধরেই লকডাউনে আছিঃ শ্রীসান্থ

pacer S Sreesanth

প্রায় দুই মাস ভারতজুড়ে লকডাউন চলছে। করোনার প্রকোপ কমাতে লকডাউন ছাড়া আর কিছু করার নেই কারও। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। সারাদিন ঘরবন্দি অবস্থা।

বিরক্ত হয়ে পড়ছে মানুষ। কতদিন চলবে এই ঘরবন্দি দশা! তা নিয়েও এখনই কিছু জানায়নি সরকার। তবে লকডাউন যে দীর্ঘ হবে সেই আন্দাজ পাওয়া যাচ্ছে। কারণ গোটা দেশে আগুনের মতো ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস।

এর মধ্যে লকডাউন শিথিল করে দিলে সংক্রমণের মাত্রা অনেকটাই বেড়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। অর্থাৎ মানুষের বিরক্তি আরও কিছুদিন বাড়বে। আর এই সময়টাকে নিজের কেরিয়ারের সঙ্গে তুলনা করেছেন ভারতীয় পেসার এস শ্রীসান্থ।

২০১৩ আইপিএল ফিক্সিং কাণ্ডে তার নাম জড়িয়েছিল। এরপর থেকেই ক্যারিয়ার শেষ। হাজার চেষ্টা করেছেন ক্রিকেটে ফিরে আসার! কিন্তু পারেননি।

একটা সময় ভারতীয় পেস অ্যাটাক—এর অন্যতম স্তম্ভ ছিলেন শ্রীসান্থ। কিন্তু ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে নিজের ক্যারিয়ার নিজেই লাটে তুলেছেন তিনি।

চলতি বছর সেপ্টেম্বরে অবশ্য শ্রীসান্থের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হচ্ছে। এবার তিনি প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন। আপাতত সেই অপেক্ষায় দিন কাটছে তার।

তবে এখন তার ৩৭ বছর বয়স। পেশাদার ক্রিকেট সার্কিটে এই বয়সে ফিরে কি তিনি সুবিধা করতে পারবেন! সেই উত্তর অবশ্য সময় দেবে।

শ্রীসান্থ এক সাক্ষাত্কারে বলেছেন, “দেখুন, সবাই হয়তো এই কদিন লকডাউনে থেকে বিরক্ত হয়ে উঠেছেন। আমার পেশার দিক থেকে বিচার করলে আমি তো গত সাড়ে ছয় বছর ধরেই লকডাউনে আছি।

আরও পড়ুনঃনামাজের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে মসজিদ

শুধু সিনেমা, টিভিতে অভিনয় করেছি। কিন্তু যেটা আমার সবচেয়ে ভালোবাসার খেলা, সেই ক্রিকেট থেকেই দূরে সরিয়ে রাখা হয়েছে আমাকে।

অনেকে ভাবছেন, এতদিন পর মাঠে ফিরে আমি কি ভাল পারফর্ম করতে পারব? তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, আমি কিন্তু এই সময়টাতে বসে ছিলাম না। ইনডোর প্র্যাকটিস করেছি। নিজেকে ফিট রাখতে যা যা করার সবই করেছি।”

0Shares