গাজায় সমুদ্রপথে ত্রাণসামগ্রী পাঠাবে ইইউ

Gaza maritime corridor could begin at weekend

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় সমুদ্রপথে ত্রাণসামগ্রী পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। সে লক্ষ্যে সমুদ্রপথে একটি করিডোরও চালু করা হচ্ছে জানানো হয়েছে। চলতি সপ্তাহ শেষেই এই করিডোরের মাধ্যমে গাজায় ত্রাণ পাঠানোর কাজ শুরু হবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েন এ ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, শুক্রবার সাইপ্রাসে বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন উরসুলা ভন ডার লিয়েন।

ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট বলেন, একটি দাতব্য গোষ্ঠীর সংগৃহীত ত্রাণের পরীক্ষামূলক চালান শুক্রবার সকালে (স্থানীয় সময়) সাইপ্রাস থেকে গাজার দিকে যাবে। সংযুক্ত আরব আমিরাত এতে সহযোগিতা করছে।

সাইপ্রাসের লারনাকা পরিদর্শনের পর তিনি বলেন, আমরা সাইপ্রাস সামুদ্রিক করিডোরটি ইউরোপীয় ইউনিয়ন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমন্বয়ে একসঙ্গে চালু করছি। আমরা এখন এই করিডোরটি খোলার খুব কাছাকাছি। আশা করছি, এই শনিবার-রোববার এবং আমি আজকে একটি প্রাথমিক চালান চালু করতে দেখে খুব খুশি।

এই ঘোষণা এমন এক সময় দেওয়া হলো যার মাত্র আগের দিনই (বৃহস্পতিবার) মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানান, সমুদ্রপথে গাজায় ত্রাণ পাঠানোর জন্য গাজা উপকূলে অস্থায়ী বন্দর নির্মাণ করবে মার্কিন সামরিক বাহিনী। তবে প্রেসিডেন্টের এ ঘোষণার পর মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, বন্দর নির্মাণে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে।

এদিকে ইসরাইল এই সামুদ্রিক করিডোরকে স্বাগত জানিয়েছে এবং অন্যান্য দেশকে এতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। শুক্রবার তারা বলেছে, সাইপ্রাস থেকে গাজা উপত্যকা পর্যন্ত একটি মানবিক সহায়তা করিডোরকে তারা স্বাগত জানায়। ইসরাইলের প্রধান মিত্র যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত একটি উদ্যোগ এটি। আগামী রোববার থেকে ইইউ ত্রাণ পাঠানো শুরু করতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইসরাইলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লিওর হায়াত এক্স হ্যান্ডলে বলেছেন, সাইপ্রিয়ট (সাইপ্রাস) থেকে ত্রাণের জাহাজ পাঠানোর উদ্যোগটি ইসরাইলি মান অনুযায়ী নিরাপত্তা পরীক্ষার পরই কেবল গাজা উপত্যকায় মানবিক সহায়তা পৌঁছানোর অনুমতি দেবে।


কমেন্ট As:

কমেন্ট (0)