জাতীয়লিড নিউজ

ভ্যাটের তথ্যানুসন্ধানে মাঠে ভ্যাট গোয়েন্দা

বিজয় বাংলাদেশ ডেস্ক রিপোর্ট: ভ্যাট আইন অনুসারে ভ্যাটযোগ্য প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট নিবন্ধন নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করা বাধ্যতামূলক। একইসঙ্গে, প্রতিটি পণ্য বা সেবা বিক্রির সময় ক্রেতাকে যথাযথভাবে মূসক-৬.৩ এ চালান প্রদান এবং ক্রেতার কাছ থেকে কাটা ভ্যাট মাস শেষে ১৫ তারিখের মধ্যে সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে রিটার্ন দেওয়ার বিধান রয়েছে। এর ব্যত্যয় ঘটলে তদন্তের মাধ্যমে ফাঁকি দেওয়া ভ্যাট, জরিমানা ও সুদসহ আদায় করা হচ্ছে। প্রতিবছর এ আইন অমান্য করে ব্যবসা পরিচালনা করায় বিপুল রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

তাই এবার এনবিআরের নির্দেশনা অনুযায়ী ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর চারটি জরিপ টিম গঠন করেছে, যারা রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে চারটি ভ্যাট কমিশনারেট (ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিম) এর আওতাধীন বিভিন্ন বিপণিবিতান, শপিংমল, কারখানা ও সেবা প্রতিষ্ঠানে পরিদর্শন করে ভ্যাট সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করবে। এসব তথ্যে সংগ্রহের মধ্যে রয়েছে ভ্যাট নিবন্ধন নম্বর, নিবন্ধন সনদ দৃশ্যমান স্থানে প্রদর্শিত আছে কিনা, বিক্রিত পণ্য বা সেবার প্রকৃতি, টিন, দোকানের আয়তন ও ভাড়া, কর্মচারীর সংখ্যা ও তাদের আনুমানিক বেতন, মাসিক গড়ে বিদ্যুৎ বিলের পরিমাণ, জুলাই ২০২০ থেকে এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত ১০ মাসে ভ্যাট রিটার্ন দিয়েছে কিনা এবং মাসভিত্তিক ভ্যাটের পরিমাণ। জরিপ দলের কর্মকর্তারা নির্ধারিত ফর্মে ভ্যাটযোগ্য প্রতিষ্ঠানের তথ্য সংগ্রহ করবে এবং পরে যাচাই করে প্রতিবেদন দেবে। গত সোমবার (২৪ মে) ভ্যাট গোয়েন্দা সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সূত্রে জানা যায়, এনবিআরের নির্দেশনায় ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের জরিপ টিমে কাজ করবে, (১) মালেকিন নাসির, সহকারী পরিচালক, টোকিও স্কয়ার, মোহাম্মদপুর, (২) তানভীর আহমেদ, উপপরিচালক সানরাইজ প্লাজা ও অর্কিড প্লাজা, ধানমন্ডি, (৩) মুনাওয়ার মুরসালিন, সহকারী পরিচালক, নাভানা টাওয়ার, গুলশান-১, অনন্যা মার্কেট, বারিধারা ও (৪) মাহিদুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক, হাজী হোসেন প্লাজা, (রূপগঞ্জ ব্রিজের আগে), নারায়ণগঞ্জ।

ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, মাঠপর্যায়ের এসব তথ্য সংগ্রহের পর স্থানীয় ভ্যাট অফিস এবং ভ্যাট অনলাইন সিস্টেমের সঙ্গে যাচাই করে প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হবে। এই সার্ভের মাধ্যমে যারা ভ্যাটের আওতাভুক্ত নেই তাদের আইনের আওতায় উদ্বুদ্ধ করা হবে। একইসঙ্গে সঠিক পরিমাণ ভ্যাট নিয়মিতভাবে সরকারি কোষাগার জমা দিতে নিবন্ধিতদের আইনের বিধান সম্পর্কে অবহিত করা হবে। এই সার্ভে করার সময় সংশ্লিষ্ট মার্কেট সমিতির সহায়তা নেওয়া হচ্ছে। ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের এই কার্যক্রম দেশে ভ্যাট সংক্রান্ত করবান্ধব সংস্কৃতি গড়ে তুলতে সহায়ক হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

এই জাতীয় আরো খবর

Back to top button