আইন ও আদালতরংপুরসারাদেশ

রকি হত্যা মামলার আসামি ইমরানসহ গ্রেপ্তার দুই

রিপন মিয়া, ফুলছড়ি (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা রকি হত্যা মামলার এজাহার নামীয় আসামী ইমরানকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। একই সাথে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঘটনার সাথে সরাসরি যুক্ত থাকায় রবিন নামের অপর একজনকেও আটক করেছে পুলিশ।
সোমবার (৪ অক্টোবর) সকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম। গ্রেপ্তারকৃত ইমরান (৩৪) পূর্বপাড়া এলাকার ইলিয়াস আলী ওরফে বাঙ্গালির ছেলে ও আটককত রবিন (২৮) গাইবান্ধার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান হাসু মিয়ার ছেলে।
সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম জানান, গত ১১ জুলাই রাতে শহরের পূর্ব পাড়ায় ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা রকিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরের দিন ১২ জুলাই ৪ জনের নাম উল্লেখ  করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হলে, মামলার প্রেক্ষিতে এজাহার নামীয় মানিক নামের একজনকে গ্রেপ্তার ও সন্দেহভাজন চারজনকে আটক করে পুলিশ। তাদের থেকে পুলিশ অনেক তথ্য-উপাত্ত পেয়েছিল যা তদন্তের স্বার্থে সাংবাদিকদের জানানো হয়নি।
এসময় পুলিশ সুপার আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত ইমরান তার পরিবারের সাথে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রেখে ঢাকার যাত্রাবাড়ীর একটি লোহাগলা কারখানায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করছিল। সেখানে তার নাম ইমরান পরিবর্তন করে বাঁধন পরিচয় দিয়ে কাজ করে আসছিল। ইমরান কে গ্রেপ্তারের পর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে হত্যাকান্ডে সরাসরি যুক্ত থাকার অভিযোগে রবিনকে তার বাসা থেকে আটক করা হয়”।
এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার বলেন,” গ্রেপ্তারকৃতদের থেকে চাঞ্চল্যকর অনেক তথ্য-উপাত্ত, হত্যাকান্ডে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার অনেক নাম পাওয়া গেছে। যা তদন্ত ও অন্যন্য আসামীদের গ্রেপ্তারের স্বার্থে প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে, হত্যাকান্ডের কারণ হিসেবে স্থানীয় আধিপত্য ও পূর্ব শত্রুতা দুটি কারণ উল্লেখ করলেও তদন্তের স্বার্থে অন্য কারণগুলো প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছেনা বলেও জানান পুলিশ সুপার”।
উল্লেখ্য গত ১১ জুলাই রবিবার রাত ১০ টার দিকে গাইবান্ধা-বালাসী সড়কের পুর্বপাড়া হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরির সামনে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে খুন হন ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অশিকুর রহমান রকি। এ ঘটনায় পরদিন সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button