রাজশাহীসারাদেশ

লালপুরে ইউপি নির্বাচনে লড়ছেন তৃতীয় লিঙ্গের হিরা

সজিবুল ইসলাম লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি

নাটোরের লালপুরে একটা সময় ট্রেনে যাত্রীদের কাছে থেকে টাকা তুলতেন তৃতীয় লিঙ্গের সামসুন্নাহার হিরা। তবে এখন পেক্ষাপট পাল্টিয়েছে। মানুষের ভালোবাসায় হয়েছেন জনপ্রতিনিধি। এবারও উপজেলার চংধুপইল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত আসনে মহিলা মেম্বার পদে প্রার্থী হয়েছেন তিনি।

সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ছুটছেন ভোটারদের দারেদারে। আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় এই নির্বাচনের আগে পাড়া-মহল্লা, হাট-বাজারে চায়ের দোকানে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন তৃতীয় লিঙ্গের এই প্রার্থী।

গত নির্বাচুেুুনও তিনি ইউনিয়নের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের আসন থেকে প্রথমবারের মত মহিলা মেম্বার নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে গত ৫ বছরেও হিরার ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটে নি। থাকছেন খুপড়ি ঘরেই। এবারো তিনি আরো ৫ প্রার্থীর সঙ্গে মাইক প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

ছোটবেলায় লিঙ্গ পরিচয় প্রকাশ পাওয়ার পর পাশ্ববর্তী রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার বরবরি গ্রামে থেকে আব্দুলপুর রেলওয়ে স্টেশনের কাছে মাদরীর পালা গান করতে এসে থেকে যান হিরা। ট্রেনের যাত্রীদের কাছে থেকে টাকা উঠাতে গিয়ে প্রত্রিকায় তৃতীয় লিঙ্গের জনপ্রতিনিধি হওয়া খবর নজর আসে তার। এলাকায় জনপ্রিয়তা থাকায় নির্বাচনে অংশ নিয়ে প্রথম প্রথম বিরূপ মন্তব্য শুনলেও এখন মানুষের কাছ থেকে ভালোবাসাও পাচ্ছেন।

নির্বাচন প্রসঙ্গে সামসুন্নাহার হিরা বলেন, এলাকার মানুষ আমাকে ভালোবেসে প্রার্থী করেছেন। মানুষ আমাকে যে ভালোবাসা দিয়েছে, তার প্রতিদান দিতে চাই। স্বামী-সন্তান-পরিবার নেই, জনগণই আমার সব। নির্বাচনে জয়ী হলে জীবনের বাকিটা সময়ও জনগণের সেবা করে যাব।

এবিষয়ে চংধুপইল ইউপি নির্বাচনে দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকতা রফিকুল ইসলাম বলেন, এই নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়েছে তার উদহারণ হিরা। তার দেখাদেখি পরিবর্তে তার মত অনেকেই নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহী হবে।

এছাড়া গত নির্বাচনে নাটোর জেলার মধ্যে তিনিই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হিসেবে জয়লাভ করেছিলেন।

এই জাতীয় আরো খবর

Back to top button