বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০

সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষন করল অবসর প্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক

Retired school teacher rapes seventh grade student

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর সদকী ইউনিয়নের ঘাসখালের জিডি শামছুদ্দিন আহমেদ কলেজিয়েট স্কুলের সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ অতঃপর আট মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযুক্ত অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু তালেব ওরফে নান্নু (৭০) একই এলাকার দরবেশপুর গ্রামের বাসিন্দা।

উল্লেখিত অন্তঃসত্ত্বা শিক্ষার্থী জানান, সে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়াকালীন সময়ে উল্লেখিত মাষ্টারের বাড়িতে তার মা কাজ করার সুবাদে সে ঐ বাড়িতে যাতায়াত করতো ১ বছর পূর্বে মাষ্টারের স্ত্রী অসুস্থ হলে তাকে অপারেশন করাতে ঢাকা পিজি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

সে সময় মাষ্টার তাকে একা পেয়ে জোড় পূর্বক ধর্ষণ করে। এবং পরবর্তীতে নান্নু মাষ্টার তাকে বিভিন্ন নিত্য ব্যবহার্য জিনিসপত্র কিনে দিয়ে একাধিক বার তার দেহ ভোগ করে। ।

শেষ কতদিন আগে নান্নু মাষ্টার তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করেছে প্রশ্নের জবাবে জানায় ৬ মাস পূর্বে। সে আরো জানায় ৬ মাস পূর্বে শেষ এবং তার অনেক আগে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়াকালীন শারীরিক সম্পর্ক করে নান্নু মাষ্টার।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সরজমিন গেলে,ধর্ষিতার মা জানান,”আমি নান্নু মাষ্টারের বাড়িতে চাকরানির কাজ করি।আমার মেয়ে মাঝে মাঝে ওই বাড়িতে আসতো।

প্রায় এক বছর আগে নান্নু মাষ্টারের বউ চিকিৎসার জন্য ঢাকা গেলে আমার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

মেয়েটি ভয়ে কাউকে কিছু না জানানোর সুযোগ নিয়ে মাঝে মাঝেই মোবাইলে ডেকে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে।তিনি আরো জানান,মেয়েটি এখন আট মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা।

আরও পড়ুনঃ মামা-ভাগনির প্রেমের সম্পর্কের জেরে খুন হয় শ্রাবণী

আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা কিভাবে জানলেন কোন পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়েছে কিনা জিজ্ঞেস করলে জানান ভিজিটর বলেছে।

সরেজমিন গিয়ে অভিযুক্ত আবু তালেব ওরফে নান্নু মাস্টার ও তার পরিবারের কোন লোক পাওয়া যায়নি বাড়ি তালাবন্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে জিজ্ঞেস করলে জানান, স্ত্রীর অপারেশনের সময় আমি ঢাকাতে ছিলাম,বাড়িতে ছিলাম না। তিনি আরো জানান,প্রায় তিন বছর পূর্বেই আমি শারীরিক ভাবে অক্ষম”। তিনি বলেন ডিএনএ টেষ্ট করিয়ে প্রকৃত অপরাধী চিহ্নিত করা হোক।

জিডি শামসুদ্দিন কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষককে তার প্রতিষ্ঠানের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী নান্নু মাষ্টার কর্তৃক ধর্ষণের শিকার এবং আট মাসের অন্তঃসত্ত্বার বিষয়ে কিছু জানেন কিনা জিজ্ঞেস করলে জানান ২ দিন আগে শুনেছি।

কোন পদক্ষেপ নিয়েছেন কিনা জিজ্ঞেস করলে জানান ধর্ষিতার পরিবারের পক্ষ থেকে দরখাস্ত দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিষয়টি ধামাচাপা দেবার অপচেষ্টা কিনা জিজ্ঞেস করলে তিনি কোন সদুত্তর দেননি।

এ ঘটনায় কুমারখালী থানায় মামলা হয়েছে মামলা নং ১২ তাং ১২/০৩/২০২০।

ডাঃ এম এ মান্নান,জেলা প্রতিনিধি কুষ্টিয়া

0Shares

ভিন্ন খবর