হাজিদের লাগেজে এই ৩০ পণ্য পাওয়া গেলে রেখে দেবে সৌদি

Generic placeholder image
  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পবিত্র হজ পালন শেষে নিজ নিজ দেশে ফিরে যাচ্ছেন হাজিরা। ফিরে যাওয়ার সময় বেশিরভাগ হাজিই আত্মীয়-স্বজন ও পরিবার-পরিজনের জন্য কিছু না কিছু নিয়ে আসেন।

তবে সৌদি আরবের রাজধানী জেদ্দার কিং আব্দুলআজিজ বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ঘোষণা দিয়েছে, দেশ ফেরত হাজি বা সাধারণ যাত্রীদের কারও লাগেজে ‘নির্দিষ্ট ৩০টি পণ্য’ পাওয়া গেলে সেগুলো জব্দ করা হবে এবং এগুলো ফেরত পাওয়ার জন্য কোনো দাবি করলেও, সেটি গ্রহণযোগ্য হবে না।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এ নির্দেশনা সকল যাত্রীর উদ্দেশ্যে দিলেও, বিশেষভাবে হাজিদের সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, তারা যেন নিষিদ্ধ এ ৩০টি পণ্য নিয়ে বিমানে ওঠার চেষ্টা না করেন।

এ ৩০টি পণ্যকে আবার দু’টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এরমধ্যে ১৬টি পণ্য নিয়ে (হাতে বহন করা যায় লাগেজে নিয়ে) বিমানের কেবিনে ওঠা যাবে না। আর ১৪টি পণ্য কোনোভাবেই কোনো লাগেজে করে বিমানে বহন করা যাবে না।

হাতের লাগেজে করে যেসব পণ্য নিয়ে কেবিনে ওঠা যাবে না

ছুরি, সংকুচিত গ্যাস, বিষাক্ত তরল, ব্লেড, বেসবল ব্যাট, বৈদ্যুতিক স্কেটবোর্ড, বিস্ফোরক, ক্র্যাকার, আগ্নেয়াস্ত্র, চৌম্বকীয় পদার্থ, তেজস্ক্রিয় বা ক্ষয়কারী উপাদান, যে কোনও বিপজ্জনক সরঞ্জাম, নেলকাটার, কাঁচি এবং চাপাতি।

কোনোভাবেই লাগেজে বহন করা যাবে না যেসব পণ্য

জৈব পারক্সাইড, তেজস্ক্রিয় পদার্থ, বৈদ্যুতিক শক ডিভাইস, নিষ্ক্রিয় করার ডিভাইস, তরল অক্সিজেন ডিভাইস, সংক্রামক জৈবিক উপকরণ, ম্যাচ, লাইটার, বিস্ফোরক বা ক্র্যাকার, দাহ্য তরল, সংকুচিত গ্যাস, অস্ত্র সদৃশ বস্তু, চৌম্বকীয় উপকরণ এবং দ্রাবক পণ্য।

এদিকে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, বিমানে কোন পণ্য বহন করা যাবে, আর কোনগুলো বহন করা যাবে না— সে বিষয়ে বিস্তারিত জানতে তারা যেন নিজ নিজ এয়ারলাইন্সের সঙ্গে আগে থেকেই যোগাযোগ করেন।

কমেন্ট As:

কমেন্ট (0)